এক বছর পর রাজধানীবাসী পাইপলাইনের পানি পান করতে পারবে

816
gb

জিবিনিউজ24 ডেস্ক:

আগামী ১ বছরের মধ্যে রাজধানীবাসীকে পাইপলাইনের মাধ্যমে সুপেয় পানি সরবরাহ করা সম্ভব হবে।

আজ সংসদে স্বতন্ত্র সদস্য রুস্তম আলী ফরাজীর এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেনের পক্ষে প্রতিমন্ত্রী মশিউর রহমান রাঙ্গা এ কথা বলেন।

 

প্রতিমন্ত্রী বলেন, স্থানীয় সরকারের আওতাধীন ঢাকা ওয়াসার চলমান প্রকল্পগুলো আগামী এক বছরের মধ্যে সম্পন্ন হলে স্যুয়ারেজ লাইনগুলো ঠিক হয়ে যাবে। তখন ওয়াসার পাইপলাইনের পানি পান করা যাবে।

পানির অপচয় রোধকল্পে আইন করার প্রয়োজনীয়তার কথা উল্লেখ করে তিনি সকলকে পানির অপচয় রোধকল্পে সচেতন হওয়ার আহবান জানান।

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী বলেছেন, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর ২০০৩ সালে সমগ্র দেশের ২৭১ উপজেলায় প্রায় ৫০ লাখ নলকূপের আর্সেনিক পরীক্ষা করেছে। এর মধ্যে প্রায় ১৪.৫ লাখ অর্থাৎ ২৯ শতাংশ নলকূপের পানিতে মাত্রাতিরিক্ত (৫০পিপিবি এর ওপরে) আর্সেনিক পাওয়া গেছে।

রোববার জাতীয় সংসদে সরকারি দলের সদস্য দিদারুল আলমের (চট্টগ্রাম-৪) তারকা চিহ্নিত প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন মন্ত্রী।

তিনি জানান, বর্তমান সরকার গৃহীত বিভিন্ন প্রকার নিরসন কার্যক্রম বাস্তবায়নের ফলে বর্তমানে ১২ শতাংশ মানুষ আর্সেনিক দূষণজনিত ঝুঁকির মধ্যে আছে।

তিনি বলেন, সুপেয় পানি ও কৃষি কাজে ভূ-গর্ভস্থ পানির ওপর অধিকহারে নির্ভরশীলতার কারণে ইতোমধ্যে ভূ-গর্ভস্থ পানির স্তর ৩ মিটার হতে ১০ মিটার পর্যন্ত নিচে নেমে গেছে। ফলে গ্রীষ্ম মৌসুমে নলকূপে পর্যাপ্ত পানি পাওয়া যায় না।

এ অবস্থা থেকে উত্তরনের জন্য সরকার ৩শ’ ৭৫ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘পানি সংরক্ষণ ও নিরাপদ পানি সরবরাহের লক্ষ্যে জেলা পরিষদের পুকুর/দিঘি/জলাশয়সমূহ পুনঃখনন/সংস্কার’ শীর্ষক একটি প্রকল্প হাতে নিয়েছে। এ প্রকল্পের আওতায় সারাদেশে ৮০৯টি পুকুর পুনঃখনন করা হয়েছে। পল্লী অঞ্চলে পানি সরবরাহ প্রকল্পের আওতায় জেলা পরিষদের ১৪৩টি পুকুর পুনঃখনন করা হয়েছে।