লন্ডনে মুসলিম কমিউনিটি এসোসিয়েশনের সদস্য সম্মেলন সম্পন্ন: মুসলেহ ফারাদী প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত

81
gb

জিবি নিউজ ২৪ ডেস্ক//

ইউরোপের সর্ববৃহৎ দাওয়া সংগঠন মুসলিম কমিউনিটি এসোসিয়েশন এর সদস্য সম্মেলন সম্পন্ন হয়েছে গহত ৬ অক্টোবর, রবিবার। পূর্ব লন্ডনের একটি ইভেন্ট হলে আনন্দঘন পরিবেশে অনুষ্ঠিত দিন ব্যাপী এই সম্মেলনে শুরুতে পবিত্র কালামে পাক থেকে দারস পেশ করেন বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ শেখ আব্দুল কাইয়ুম। মুসলিম কমিউনিটি এসোসিয়েশন এর প্রেসিডেন্ট, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও ম্যানচেস্টার ইউনিভার্সিটির ইকোনোমিস্কর প্রফেসর ড: ইমরানুল হকের সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারি জেনারেল নেছার আহমদের পরিচালনায় আরও গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও ইসলামিক ফোরাম ইউরোপের সাবেক দুই প্রেসিডেন্ট হাবিবুর রহমান ও দেলোয়ার হোসেন খান।

অতিথিতিদের বক্তব্যের পর সংবিধান অনুসারে সংগঠনের সকল সদস্যদের গোপন ব্যালটের মাধ্যমে প্রথম পর্বে ১৯ জন সূরা কাউন্সিলের সদস্য নির্বাচন করা হয়, দ্বিতীয় পর্বে নির্বাচিত কাউন্সিলের সদস্যদের মধ্যে থেকে আগামী দুই বছরের জন্য মুসলিম কমিউনিটি এসোসিয়েশন এর কেন্দ্রীয় সভাপতি হিসেবে বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ ও লন্ডন ইস্ট একাডেমির প্রতিষ্টাতা প্রিন্সিপাল মুসলেহ ফরাদী কে নির্বাচিত করা হয়। নির্বাচিত শূরা কাউন্সিলের সদস্যরা হলেন ড: এমরানুল হক, নেছার আহমেদ, মোহাম্মদ আতিকুর রহমান (জিলু), দিলোয়ার হোসেন খান, হাবিবুর রহমান, আইয়ুব খান, হাফিজ আবুল হুসেন, আবদুল কাইয়ুম, হামিদ হোসেন আজাদ, মামুন আল হাসান, আবু বক্কর, আব্দুল মুমিন, নুরুল মতিন চৌধুরী, সিরাজুল ইসলাম হীরা, রাহেলা চৌধুরী, আবদুল্লাহ ফলিক, মামুন আল আজমি ও মোঃ রব্বানী।
সম্মেলনে লন্ডন ছাড়াও যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন শহর থেকে শত শত সদস্য উপস্থিত ছিলেন। নব নির্বাচিত সভাপতি মুসলেহ ফারাদী তাঁর শুভেচ্ছা বক্তব্যে বলেন সকলের প্রচেষ্টা ও সহযোগিতা নিয়ে আমাদের মিশন বাস্তবায়িত করতে হবে, আমাদের সন্তানরাই আমাদের ভবিষৎ, তাদের শিক্ষা জীবন সুন্দর করার জন্য, সুন্দর ও শান্তিপূর্ণভাবে মানুষের সাথে বসবাসের জন্য দুনিয়া ও পরকালের জীবনকে সফল করার জন্য, শিক্ষা সম্পর্কে ধারণা পরিবর্তন করার সাথে শিক্ষাদানের পদ্ধতি শিক্ষার বিষয়বস্তু ও সময়োপযোগী ও পরিবর্তন আনতে হবে। জীবনের জন্য যে শিক্ষা তার জন্য শুধু স্কুলের উপর ভরসা করলে চলবেনা। জীবন যত ব্যাপৃত শিক্ষাকেও তেমনি প্রসারিত হতে হবে। এ দায়িত্ব যেমন নিতে হবে পরিবারকে তেমনিভাবে এর বোঝা বহন করতে হবে পাড়া-প্রতিবেশী সমাজ- কমিউনিটি ও রাষ্ট্র যন্ত্রকে এবং
আমাদের সগঠনের পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে অনেক দায়িত্ব পালন করতে হবে। ব্যক্তির আচার-আচরণ, সভ্যতা-সংস্কৃতি, লেন-দেন, কথা-বার্তা, চাল-চলন, উদারতা-মানবতা, বৈষয়িক-আধ্যাত্মিক মোদ্দা কথা পুরো জীবনকে শিক্ষার আওতায় নিয়ে আসতে হবে। এ ধারনাটাই ইসলাম ‘তারবিয়াহ’ শব্দের মাধ্যমে দেয়ার চেষ্টা করেছে। পুথিগত বিদ্যাই শুধু নয় বরং জীবন গড়ার ধারণাই ইসলাম দিয়ে গেছে।
আর এ শিক্ষা একদিন বা জীবনের কয়েক বছরে লাভ করা সম্ভব নয়। পুরো জীবনকে শিক্ষা জীবন হিসেবে গ্রহণ করলেই এ শিক্ষা লাভ করা সম্ভব। এ কারণেই আল্লাহর বাসূল (স:) বলে গিয়েছেন শিক্ষা লাভ করতে হবে দোলনা থেকে কবর পর্যন্ত। এজন্যই তিনি বলেছেন। এক ঘন্টা জ্ঞান চর্চার মর্যাদা সারা রাতের নফল ইবাদতের চেয়ে বেশী।

বাংলাদেশী কমিউনিটি ভবিষ্যত উজ্জল করতে হলে কমিউনিটি এই তারবিয়ার দায়িত্ব নিতে হবে। পরিবার, নেইবারহুড, কমিউনিটি সংগঠন, মসজিদ-মাদ্রাসাকে পুরো উদ্যমে এ কাজে নেমে যেতে হবে। নেতা – কর্মী, সদস্যদের মধ্যে আরো গভীর সম্পর্ক স্থাপন করতে হবে
এ তারবিয়ার আওতায় বড় ছোট নির্বিশেষে সমাজের সকল মানুষকে নিয়ে আসতে হবে।

বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ ও ব্রোমলিবাইবো মসজিদের খতিব মাওলানা সায়ীদ আহমদের দোয়ার মাধ্যমে সম্মেলনের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয় l

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More