নারায়ণগঞ্জে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ কিশোর গ্যাং-এর প্রধান নিহত

51
gb

বিশেষ প্রতিনিধি জিবি নিউজ ২৪

নারায়ণগঞ্জে কিশোর গ্যাং বাহিনীর প্রধান তুহিন ওরফে চাপাতি তুহিন (১৫) র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়েছে। বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) ভোরে শহরের সৈয়দপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে একটি বিদেশী পিস্তল, একটি ম্যাগাজিন ও তিন রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। নিহত তুহিন দেওভোগ শান্তিনগর এলাকার কাওসার হোসেনের ছেলে। তার বিরুদ্ধে হত্যা, মাদক ও চাঁদাবাজি সহ চারটি মামলা রয়েছে।

আদমজী র‌্যাব-১১ এর এএসপি মশিউর রহমান জানান, মঙ্গলবার রাতে কুমিল্লার দেবীদ্বার থেকে তুহিনকে আটক করা হয়। তার দেয়া তথ্যমতে রাতে শহরের সৈয়দপুর এলাকায় অস্ত্র ও মাদক উদ্ধার যায় র‌্যাব। এসময় আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা তুহিনের সহযোগিরা তাকে ছাড়িয়ে নিতে র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালালে তুহিন গুলিবিদ্ধ হয়। পরে আহত অবস্থায় নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

উল্লেখ্য, নিহত তুহিন শহরের দেওভোগের হাসেমবাগে শাকিল হত্যা মামলার প্রধান আসামি। গত ২৭ জুলাই রাতে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শাকিল নামের যুবককে কুপিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করে কিশোর গ্যাং সন্ত্রাসী তুহিন ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা। ওই ঘটনায় আরও ছয়জনকে কুপিয়ে আহত করা হয়। পরে নিহত শাকিলের বড় ভাই সাঈদ হোসেন তুহিনকে প্রধান আসামি করে ফতুল্লা মডেল থানায় একটি মামলা করেন।

এর আগে গত ২৭ জানুয়ারি রাতে দেওভোগ মাদরাসা এলাকায় আলমগীরকেও কুপিয়ে হত্যা করে এই কিশোর গ্যাং বাহিনীর সদস্যরা। নিহত আলমগীর মুন্সিগঞ্জের টঙ্গিবাড়ি থানার দশলং এলাকার লাল মিয়ার ছেলে। সে দেওভোগ মাদরাসা এলাকার নুরু মিয়ার বাড়িতে ভাড়া থাকতো। এছাড়াও এই কিশোর গ্যাং সন্ত্রাসীদের হাতে দেওভোগ নাগবাড়িতে নির্মমভাবে খুন হয় হৃদয় হোসেন বাবু নামে আরও এক যুবক।

gb
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More