দুর্গতদের মধ্যে সরকারিভাবে যে ত্রাণ দেওয়া হচ্ছে তা অপ্রতুল জিএম কাদেরের

107

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা প্রতিনিধি//

বন্যা দুর্গতদের মধ্যে সরকারি ত্রাণ-তৎপরতা বাড়ানোর দাবি জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। শনিবার (২৭ জুলাই) বিকেলে গাইবান্ধা এনএইচ মডার্ন হাইস্কুলে আশ্রয় গ্রহণকারী বন্যার্ত জনগণের মধ্যে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি সরকারের প্রতি এ দাবি জানান। তিনি বলেন, দুর্গতদের মধ্যে সরকারিভাবে যে ত্রাণ দেওয়া হচ্ছে তা অপ্রতুল। সরকারের উচিত যেভাবে বন্যা কবলিত এলাকার মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সেঅনুযায়ী প্রত্যেকের হাতে পর্যাপ্ত ত্রাণ বিতরণ পৌঁছে দেওয়া। তাই ত্রাণ-তৎপরতা আরও বাড়ানোর দাবি জানাচ্ছি। সদ্য প্রয়াত তার বড় ভাই হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের স্মৃতিচারণ করে বলেন, তিনি রাষ্ট্র ক্ষমতায় থাকাকালে ১৯৮৬ সালের দুর্যোগের সময় নিজে পানিতে নেমে বানভাসিদের মধ্যে রিলিফ বিতরণ করেছেন। মানুষের ঘরে ঢুকে তাদের খোঁজ-খবর নিয়েছেন। দেশবাসীর প্রতি ছিল তার অসীম ভালোবাসা। তাই বন্যার্তরা সেসময় পর্যাপ্ত ত্রাণ পেয়েছে। আমরা যেখানেই গেছি, সেখানেই সাবেক রাষ্ট্রপতি মরহুম এরশাদের জন্য সাধারণ মানুষের চোখের পানি দেখেছি। তারজন্য মানুষের ভালোবাসা ছিল অপরিসীম। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা, দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী, আহসান আদেলুর রহমান আদেল, প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক এমপি আব্দুর রশিদ সরকার, সরওয়ার হোসেন শাহীন প্রমুখ। এর আগে জাতীয় পার্টি নেতারা সুন্দরগঞ্জ উপজেলার চন্ডিপুর হাইস্কুল মাঠে এক সমাবেশে বক্তব্য রাখেন। পরে বাদামের চর ও লালচামার চরে বানভাসি মানুষের মধ্যে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেন। নেতারা গাইবান্ধা শহরের জেলখানা মোড়েও এক পথসভায় বক্তব্য রাখেন। সেখানেও কিছু ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেন।ছবি ০ গাাইবান্ধা জেলা পুলিশের উদ্যোগে বন্যা দুর্গত মানুষের মাঝে ত্রান বিতরন ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা প্রতিনিধি ঃ গাইবান্ধা জেলার পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আবদুল মান্নান মিয়া, বিপিএম মহোদয় জুবলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ভিএইড রোড কালিবাড়ী পাড়ায় বানভাসী মানুষের মাঝে ছুটে গিয়ে শুকনো খাবার ও বিশুদ্ধ পানি বিতরণ করেন। তিনি বানভাসী মানুষদের গুজবে কান না দেওয়ার জন্য সর্তক করেন। কাউকে ছেলে ধরা সন্দেহ হলে গণ পিটুনি না দিয়ে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া এবং যেকোন পরিস্থিতিতে স্ব-স্ব থানায় সংবাদ দেওয়ার জন্য পরামর্শ প্রদান করেন। প্রয়োজনে জাতীয় *জরুরী*সেবা*৯৯৯থএ# কল করে আপনার সমস্যার কথা জানাতে পারেন। এসময় গাইবান্ধা সদর মেয়র, সিভিল সার্জন এবং গাইবান্ধা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ উপস্থিত ছিলেন। মনে রাখবেন গুজব দ্বারা প্রভাবিত হয়ে গণপিটুনি দেয়া একটি ফৌজদারী অপরাধ।