প্রিয়া সাহাকে দেশে ফিরিয়ে এনে দ্রুত তদন্ত ও শাস্তির দাবী জানিয়েছে আদর্শ নাগরিক আন্দোলন

240
 

প্রিয়া সাহারকে দেশে ফিরিয়ে এনে দ্রুত তদন্ত এবং শস্তির দাবী জানিয়েছেন আদর্শ নাগরিক আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি মুহাম্মদ মাহমুদুল হাসান। তিনি  বলেন- আমাদের লাখো শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত এই সোনার বাংলা সম্পর্কে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের কাছে বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিয়া সাহা যে বক্তব্য দিয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন। তিনি আমাদের সম্প্রীতির বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করেছেন। যা সম্পূর্ণ রাষ্ট্রদ্রোহীতার সামিল।আজ শনিবার (২৭ জুলাই ২০১৯ইং) সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আদর্শ নাগরিক আন্দোলনের উদ্যোগে- “দেশে অব্যাহত ধর্ষণ-হত্যা-গুম-গণপিটুনি ও অপহরণের প্রতিবাদে এবং ট্রাম্পের কাছে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ কারী প্রিয়া সাহাকে রাষ্ট্রদ্রোহীতার অপরাধে দেশে ফিরিয়ে এনে দ্রুত তদন্ত ও শাস্তির দাবীতে” আয়োজিত নাগরিক মানববন্ধনে তিনি এই দাবী জানান।

আদর্শ নাগরিক আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি মুহাম্মদ মাহমুদুল হাসানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট মো. আল-আমিনের সঞ্চালনায় উপস্থিত ছিলেন স্বাধীনতা অধিকার আন্দোলনের সভাপপতি ড.কাজী মনিরুজ্জামানমনির, আদর্শ নাগরিক আন্দোলনের সাবেক সহ-সভাপতি বাহারুল ইসলাম ইউনুস, সহ-সভাপতি এস.এম আবুল কালাম আজাদ, সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এস.এম কামালউদ্দিন ইসমাইল, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এম.সাইফুল ইসলাম মজুমদার, সাংগঠনিক সম্পাদক (ময়মনসিংহ বিভাগ) হুমায়ূন কবীর, সহ-প্রচার সম্পাদক ফারুক আহমেদ রাজ প্রমূখ।

মুহাম্মদ মাহমুদুল হাসান বলেন- বাংলাদেশ একটি সাম্প্রদায়িক ও সম্প্রীতির দেশ। প্রিয়াসাহা এ দেশের একজন নাগরিক হয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের কাছে গিয়ে যে বক্তব্য দিয়েছেন এটি রাষ্ট্রদ্রোহীতামূলক অপরাধ এবং দেশের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র। তার এই মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন বক্তব্যের মাধ্যমে তিনি ১৭ কোটি বাংলাদেশী মানুষের অন্তরে আঘাত করেছেন।

মাহমুদুল হাসান আরো বলেন- দেশে বর্তমানে বেশকিছু মহামারী দেখা দিয়েছে, তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে- ধর্ষণ, অপহরণ, গণপিটুনি ও ডেঙ্গু। তিনি বলেন- দেশে বর্তমানে দুই বছরের শিশু থেকে শুরু করে একশত বছরের বৃদ্ধাও ধর্ষণের কবল থেকে রেহায় পাচ্ছে না। একের পর এক ধর্ষণের ঘটনা ঘটলেও আদালতে কঠিন শাস্তি না হওয়ায় ধর্ষণের ঘটনা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। সাধারণ জনগণের জীবনের নিরাপত্তার জন্য ডেঙ্গু প্রতিরোধে সরকারকে আরো দায়িত্বশীল ভূমিকা পালনেরও আহবান জানান তিনি।

এডভোকেট মো. আল-আমিন বলেন-  প্রিয়া সাহা বর্হিবিশ্বে মিথ্যা এবং ভিত্তিহীন তথ্য প্রদান করে বাংলাদেশের সুনাম বিনষ্ট করেছে। তাকে অবশ্যই দেশে ফিরিয়ে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা সরকারের নৈতিক দায়িত্ব। তিনি আরো বলেন- ধর্ষণ, অপহরণ, গুম-খুন বন্ধে সরকার ব্যর্থ  হয়েছে। দেশের সাধারণ মানুষের জীবন রক্ষায় গণপিটুনির বিরুদ্ধে সরকারকে আরো জোরালো  ভূমিকা রাখতে হবে।