মৌলভীবাজার চাদনীঘাটে ইভটিজিংএ অতিষ্ঠ স্কুল-কলেজের ছাত্রীরা

1,398
gb

জিবি নিউজ টুয়েন্টিফোর ডট কম।।

মৌলভীবাজার চাদনীঘাট বহু পরিচিত একটা জায়গার নাম।কুলাউড়া,রাজনগর,মুন্সিবাজার এই রোডে মৌলভীবাজার শহরে আসতে হলে তারা অবশ্যই চাদনীঘাট হয়ে আসতে হয়। চাদনীঘাট বাসস্ট্যান্ড,সিএনজি স্ট্যান্ড মৌলভীবাজারের অনেক প্রাচীন ও পুরাতন স্টেশন।জেলা শহরে সরকারি -বেসরকারি নামি দামি স্কুল কলেজ থাকায় রাজনগরের আশে-পাশের অনেকই সেখানে লেখাপড়া করে থাকেন,শত শত ছাত্র-ছাত্রীরা প্রতিদিন চাদনীঘাট হয়ে জেলা শহরে আসা যাওয়া করে,তখন তাদের প্রতিনিয়ত সিএনজি ড্রাইভার দ্বারা
ইভটিজিং এর শিকার হতে হয়ে,লাঞ্ছিত হয়ে থাকে অনেক মেয়েরাই।এখন তাদের আতঙ্কের নাম চাদনীঘাট সিএনজি স্টেশন।

মৌলভীবাজার মহিলা কলেজের এক ছাত্রী নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক তার প্রতিদিন লাঞ্ছিত হওয়ার বর্ণনা হুবহু তোলে ধরা হলো।

আমি এবং আমার সহপাঠীরা আমরা মৌলভীবাজার সরকারি মহিলা কলেজে পড়ি।আমরা রাজনগর থেকে প্রতিদিন কলেজে আসি।সে ক্ষেত্রে চাঁদনীঘাট ব্রীজ হয়েই আমাদের আসতে হয়। আমরা বাড়ি থেকে যখন চাঁদনীঘাট এসে সিএনজি করে নামি তখন অনেক সময় দাড়িয়ে থেকে আমাদের অটোরিক্সা চাইতে হয়। তখন আমাদের দাড়িয়ে থেকে সেখানে থাকা অনেক ড্রাইবারদের কাছ থেকে ইভটিজিং / অশ্লিল কথাবার্তার শিকার হতে হয়। অনেক ড্রাইবারেরা আমাদের শরিরের সাথে ঘেষাঘেষি করার চেষ্টা করেন। মাঝে মধ্যে সেখানের কিছু বকাটে যুবকেরা আমাদের এভাবেই মানসিক/শারিরিক টর্চার করে। কিছু ড্রাইবারদের গাড়ি ভাড়া দিতে গেলে বলে আপনার ভাড়া লাগবেনা আপনার ফোন নাম্বার দেন আপনাকে আমার ভালো লাগে।
আমরা যেহেতু ছাত্রী সে কারনে মাঝে মধ্যে আমাদের কাছে গাড়ি ভাড়া থাকেনা। তাই আমাদের চাঁদনীঘাট হয়ে হেটে হেটেই কলেজে যেতে হয়। তাই মাঝে মাঝে আরোও বড় বড় পরিস্থিতীর শিকার হতে হয়। তাছাড়া পৌরসভার পাশে যে কার স্টেন্ড সেখানের ছেলেরাও আমাদের সাথে এইভাবেই আচরন করেন। শুধু আমাদের নয় কলেজ পড়ুয়া সব মেয়েদের একি অভিযোগ। সামনে আমাদের পরীক্ষা সময় ( ২টা থেকে ৫টা ) সে ক্ষেত্রে আমাদের বাড়ি পৌছতে পৌছতে সন্ধ্যা হয়ে যায়। আমাদের নিরাপত্তা আছে কি??? মেয়ে বলে কি আমাদের কোনো নিরাপত্তা নেই??? আমরা ত বোরকা পড়েও বের হই তাইলে কেনো???? আমাদের প্রতিদিন ভয়ের উপর যাত্রা করতে হয়।
আমরা সামাজিক / শারিরিক/ মানসিক অত্যাচারে আছি।। আমাদের সাহায্য করোন। মুরব্বিরাও দেখেন কিন্তু তারা এড়িয়ে যান।
আমরা কি পড়াশোনা বন্ধ করে দিবো??

উত্তরটা আপনাদের কাছে……?