অবশেষে মৃত্যুদণ্ড থেকে রেহাই পেতে যাচ্ছে সেই সৌদি কিশোর!

93
gb

সৌদি আরবে চার বছর ধরে আটক কিশোর মুর্তজা কুরেইরিসকে দেয়া মৃত্যুদণ্ড বাতিল করেছে দেশটির সরকার।

তাকে ২০২২ সালেই মুক্তি দেয়া হতে পারে। ব্রিটিশ এক বার্তা সংস্থাকে দেয়া সাক্ষাৎকারে শনিবার এ কথা জানিয়েছেন দেশটির এক কর্মকর্তা।

তবে এ ব্যাপারে আনুষ্ঠানিকভাবে সরকারের পক্ষ থেকে এখনও কোনো বিবৃতি দেয়া হয়নি। খবর রয়টার্সের।

আরবের দুর্নীতিপ্রবণ ও জনবিরোধী শাসকদের বিরুদ্ধে যখন বসন্তের ঢেউ খেলে গিয়েছিল, সেই সময় সৌদি রাজতন্ত্রের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছিল শিশু মুর্তজা কুরেইরিস।

বন্ধুদের সঙ্গে নিয়ে নিরস্ত্র অবস্থায় মাত্র ১০ বছর বয়সে সাইকেল নিয়ে অহিংস প্রতিবাদে নেমেছিল সে।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানায়, দীর্ঘদিন ধরে নিপীড়ন ও নির্যাতনের মধ্য দিয়ে তারা মিথ্যা স্বীকারোক্তি আদায় করে। সবশেষে সরকার বিরোধিতার শাস্তি হিসেবে ওই শিশুর মৃত্যুদণ্ডের সাজা ঘোষিত হয়েছে।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল সিএনএনে প্রকাশিত প্রতিবেদনটির সত্যতা যাচাই করেছে। লেখক-সাংবাদিক ইয়ান ফ্রেজার এক টুইটবার্তায় বলেন, ‘সৌদি তরুণ এমন ১০ বছর বয়সে গণতন্ত্রের দাবিতে প্রতিবাদে নামার শাস্তি হিসেবে মৃত্যুদণ্ড পেতে যাচ্ছে, এর পর তার মরদেহ সম্ভবত জনসমক্ষে ঝুলিয়ে রাখা হবে।’

তবে সর্বশেষ সৌদি কর্মকর্তা জানালেন, মৃত্যুদণ্ড দেয়া হচ্ছে না মুর্তজাকে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই কর্মকর্তা বলেন, ‘তার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হবে না।’

সৌদি সাংবাদিক জামাল খাশোগির হত্যাকাণ্ডের পর সারা বিশ্বের সমালোচনার মুখে পড়ে সৌদি আরব। এ ছাড়া দেশটিতে মানবাধিকারকর্মীদের ওপর চড়াও হওয়ার রেকর্ড রয়েছে সৌদি সরকারের।

বুধবার অস্ট্রিয়ার সরকার জানায়, মুর্তজার মৃত্যুদণ্ডের প্রতিবাদে তারা ভিয়েনায় সৌদি অর্থায়নে পরিচালিত ধর্মীয় কেন্দ্রগুলো বন্ধ করে দেয়ার পরিকল্পনা করছে।

gb
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More