লন্ডনে ট্রাম্পের পা পড়লেই অচল হয়ে যাবে।।বিক্ষোভকারীদের হুমকি

150
gb

জিবি নিউজ ডেস্ক।।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের লন্ডন সফরকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে যুক্তরাজ্য। লন্ডনে ট্রাম্পের পা পড়লেই রাজধানী অচল করে দেয়ার হুমকি দিয়েছে বিক্ষোভকারীরা।

লাখ লাখ বিক্ষোভকারী লন্ডনকে পঙ্গু করে দেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে। আগামী ৩ থেকে ৫ জুন যুক্তরাজ্য সফর করবেন ট্রাম্প। এবার তিনি রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের আমন্ত্রণে রাষ্ট্রীয় অতিথি হয়ে আসছেন, যা যেকোনো বিদেশি নেতার জন্য এক বিরল সম্মান।

আর এ কারণেই ফুঁসে উঠেছে বিক্ষোভকারীরা। বর্ণবাদী ও নারীবিদ্বেষী হিসেবে পরিচিত ট্রাম্পকে এ সম্মান দেয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করছেন তারা। খবর এএফপি ও বিবিসির।

ট্রাম্পের সফরকে ঘিরে কড়া প্রহরা বসানোর প্রস্তুতি চলছে। দেশজুড়ে অন্তত ২০টি স্থানে ২০ হাজার পুলিশ মোতায়েন থাকবে। এতে ব্যয় হবে অন্তত ১ কোটি ৮০ লাখ ইউরো।

এ সফরের তীব্র প্রতিবাদে প্রধান বিক্ষোভটি হবে লন্ডনের কেন্দ্রে। ট্রাফেলগার স্কয়ার থেকে পার্লামেন্ট স্কয়ার পর্যন্ত বিক্ষোভ র‌্যালি করবেন লাখ লাখ প্রতিবাদকারী। স্কটল্যান্ড ইয়ার্ড কর্তৃপক্ষ বিক্ষোভের অনুমতি দিয়েছে। ডাউনিং স্ট্রিট থেকে স্কটল্যান্ড ইয়ার্ড পর্যন্ত র‌্যালি করতে পারবেন বিক্ষোভকারীরা। এসময় ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে’র সঙ্গে মধ্যাহ্নভোজ করবেন ট্রাম্প।

ট্রাম্পের সফরের প্রতিবাদে বিক্ষোভকারীরা দুটি গ্রুপ তৈরি করেছে। একটি স্ট্যান্ড আপটু ট্রাম্প, অন্যটি স্টপ ট্রাম্প। স্ট্যান্ড আপটু ট্রাম্প গ্রুপের মুখপাত্র বলেন, ‘আমরা লন্ডনের কেন্দ্র মূল বিক্ষোভের আয়োজন করব। বিশ্ব জানবে যে, ব্রিটিশ জনগণ ট্রাম্পকে প্রত্যাখ্যান করেছে।’ স্টপ ট্রাম্প গ্রুপ জানায়, আমরা ব্রিটিশ সরকারকে এটা স্পষ্ট করব যে, ট্রাম্পকে আমন্ত্রণ করে তারা ঠিক করেনি।

ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ দল ছাড়া বিরোধী প্রায় সব কটি দলই ট্রাম্পের সফরের তীব্র সমালোচনা করছে। লেবার পার্টির ছায়া পররাষ্ট্রমন্ত্রী এমিলি থর্নব্যারি বলেন, ‘আমাদের দুই দেশের যৌথ মূল্যবোধকে ট্রাম্প পদ্ধতিগতভাবে আক্রমণ করে চলেছেন।’ বর্ণবাদী ও নারীবিদ্বেষী আচরণ উৎসাহিত করার জন্য ট্রাম্পকে দায়ী করেন লেবার পার্টির নেতা জেরেমি করবিন। তিনি ট্রাম্পের সম্মানে বাকিংহাম প্রাসাদে রানীর আয়োজিত রাষ্ট্রীয় ভোজ অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণ ফিরিয়ে দিয়েছেন। লিবারেল ডেমোক্র্যাট দলের নেতা ভিন্স ক্যাবলও ট্রাম্পের সঙ্গে ভোজ সভায় অংশ নেবেন না বলে জানিয়েছেন।

বিতর্ক সত্ত্বেও ট্রাম্পকে বরণে বাকিংহাম প্রসাদ তুমুল ব্যস্ত।

ট্রাম্পের সফরসঙ্গী হচ্ছেন স্ত্রী মেলানিয়া, পাঁচ সন্তান ও তাদের পরিবার। থাকবেন রাজপ্রাসাদে। সেন্ট জেমস প্রাসাদে ব্যবসায়ীদের এক সভায় যোগ দেবেন ট্রাম্প।

১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটে প্রধানমন্ত্রী মে’র সঙ্গে বৈঠক করবেন। রাজপরিবারের সদস্যদের সঙ্গে যোগ দেবেন ‘ডি-ডে’র ৭৫তম বার্ষিকী উদযাপনে।

থাকবে বাকিংহাম প্রাসাদের লালগালিচা সংবর্ধনা এবং রানীর আয়োজনে রাষ্ট্রীয় ভোজসভা। ২০১৮ সালের জুলাইয়ে ট্রাম্প প্রথম সরকারি সফরে যুক্তরাজ্য যান। তখনও তাকে ব্যাপক বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয়।

এই ওয়েবসাইটটি আপনার অভিজ্ঞতা উন্নত করতে কুকি ব্যবহার করে। আমরা ধরে নিচ্ছি যে আপনি এটির সাথে ঠিক আছেন তবে আপনি চাইলে অপ্ট-আউট করতে পারেন Accept আরও পড়ুন