গোবিন্দগঞ্জ আসনে মনোনয়ন পেতে বড় দলগুলিতে লবিং

1,003
gb

ছাদকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা ||

গাইবান্ধা-৪ গোবিন্দগঞ্জ আসনে আগামি জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে এরইমধ্যে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ,র্দীঘদিন সংসদের বাইরে থাকা বিএনপি ,জাতীয় পার্টি বিভিন্ন দলের  মনোনয়ন প্রত্যাশীদের দৌড়ঝাঁপ শুরু হয়ে গেছে।
বাংলাদেশের প্রথম নির্বাচনে আসনটি আওয়ামী লীগের প্রার্থী এ্যাড শাহ আবদুল হামিদ নির্বাচিত হয়ে জাতীয় সংসদের প্রথম স্পীকারের দায়িত্ব পালন করেন। আসনটি র্বতমানে আওয়ামী লীগের দখলে। নবম সংসদে আসনটি ক্ষমতাসীনদের দখলে ছিল।
উল্লেখ্য ,দশম জাতীয় জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী ছিলেন স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগের সাবেক প্রধান প্রকৌশলী ও সংসদ সদস্য মনোয়ার হোসেন চৌধুরী এবং প্রতিদ্বন্দি বিদ্রোহী  র্প্রাথী হিসেবে (আওয়ামীলীগ) অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ (স্বতন্ত্র) আনারস প্রতীক নিয়ে ভোট যুদ্ধে নেমে আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে বিপুল ভোটে পরাজিত করে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি এক সময়ের তুখোর ছাত্র নেতা,রাজনীতিতে জনপ্রিয় তৃর্ণমূল পর্যায় থেকে বর্তমান সংসদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি।
দলের একাধিক সূত্রে জানা গেছে ,একাদশ সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে দলের বর্তমান ও সাবেক দুই সাংসদ মনোনয়ন পাওয়ার শক্ত দাবিদার। এছাড়াও এক সময়ের ছাত্র নেতা কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের  ¯েœহভাজন, আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় পাট ও বস্ত্র বিষয়ক সম্পাদক বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক আলহাজ¦ নাজমুল ইসলাম লিটন মনোনয়ন প্রত্যাশী। অপর দিকে সাবেক আলোচিত ছাত্র নেতা বর্তমান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও তিন বারের সফল পৌর মেয়র আতাউর রহমান সরকার তিনিও দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী। এছাড়াও এলাকায় আস্থাভাজন জনপ্রিয় সাবেক আলোচিত সফল ছাত্র নেতা বর্তমান উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মহিমাগঞ্জ ইউপি‘র তিন বারের সফল চেয়ারম্যান আবদুল লতিফ প্রধান আসন্ন সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার আশায় দৌড় ঝাঁপ শুরু করেছেন।

অন্যদিকে নির্বাচনে অংশগ্রহণের বিষয়ে বি  এন পি‘র নেতৃত্বাধীন জোট চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত না নিলেও নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার জন্য সাবেক ছাত্র নেতা বি এন পি’র সাবেক সংসদ সদস্য গোবিন্দগঞ্জ থানা বি এন পি’র ২৬ বছরের সফল সভাপতি এবং শাখাহার ইউপি‘র ২২ বছরের সফল চেয়ারম্যান হাকিমপুর ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ আবদুল মান্নান মন্ডল আসনটি র্পূরাদ্ধারে তৃর্ণমুল সংগঠনকে শক্তিশালী করতে কাজ করছেন। এ ছাড়া সাবেক সংসদ সদস্য মরহুম আবদুল মোত্তালেব আকন্দের মৃত্যুর পর উপ-নির্বাচনে তার পুত্র শামীম কায়সার লিংকন নির্বাচিত হয়েছিলেন। কিন্তু পরে তিনি সংস্কার পন্থিতে যোগদান করায় মূল দল থেকে বিছিন্ন হয়ে যায় এবং পরবর্তী নির্বাচনে জোটের সিদ্ধান্ত ভঙ্গ করে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ভোটে অংশগ্রহণ করে পরাজিত হয়। তিনিও মনোনয়ন পেতে দলের হাই কমান্ডে দৌড় ঝাঁপ শুরু করেছেন। এছাড়াও বি এন পি‘র কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও দলের হাই কমান্ডের আস্থাভাজন অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম ও থানা বি এন পি‘র সাধারণ  সম্পাদক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাবেক ছাত্র নেতা ফারুক কবির আহম্মেদ দলীয় মনোনয়ন পেতে লবিং চালাচ্ছে বলে একটি সূত্রে শোনা যাচ্ছে।
অন্যদিকে ২০ দলীয় জোটের শরীক দল ও বিগত নির্বাচনে জোটের নমিনী জামায়াতে ইসলামীর গাইবান্ধা জেলা আমীর রাবেয়া ক্লিনিক এর পরিচালক ডা.আব্দুর রহিম সরকার দলীয় ও জোটের একক প্রার্থী হিসেবে গ্রাম গঞ্জে গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছে।
মহাজোটের শরীক দল জাতীয় পাটি (এরশাদ) এখন পর্যন্ত কোন প্রার্থীর নাম ঘোষনা  না করলেও সবুজ সংকেত পেয়ে উপজেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক অধ্যক্ষ কাজী মশিউর রহমান স্থানীয় দলের একক প্রার্থী হিসেবে গনসংযোগ করছেন। এ ছাড়া সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ¦ লুৎফর রহমান চৌধুরীর জাতীয় পার্টির মনোনয়ন নেওয়ার জন্য হাই কমান্ডে লবিং করছেন বলে জানা গেছে।
অন্যদিকে আসনটিকে ঘিরে বড় দলগুলির পাশাপাশি ছোট দলগুলিও নির্বাচনে অংশ গ্রহনের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তারা হলেন সিপিবি’র কেন্দ্রীয় নেতা বিপ্লব চাকী, ওর্য়াকার্স পার্টির সম্পাদক, নাগরিক কমিটির আহ্বায়ক এম এ মতিন মোল্লা,নাগরিক ্ঐক্যের মনোনীত প্রার্থী সাবেক সদর ইউপি চেয়ারম্যান আ ফ ম মজিবুর রহমান ফুলমিয়া,পৌর বি এন পি‘র জনপ্রিয় সভাপতি সাবেক তুখোর ছাত্র নেতা ফারুক আহম্মেদ ও আসাদুজ্জামান বিদ্যুৎ বি এন পি থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে গনসংযোগ করছেন।