আছিয়া বিবিকে কানাডায় গিয়ে হত্যার হুমকি

51

ধর্ম অবমাননার অভিযোগে ফাঁসির দণ্ড নিয়ে আট বছর কারাগারে থাকার পর পাকিস্তানি খ্রিস্টান নারী আছিয়া বিবি গত সপ্তাহে কানাডার উদ্দেশে দেশত্যাগ করেন।

কিন্তু কানাডায় গিয়েও তার প্রাণের নিরাপত্তা নিশ্চিত হলো না। একটি অজ্ঞাত পরিচয় ইসলামপন্থী জঙ্গি সংগঠন কানাডায় গিয়ে আছিয়াকে হত্যা করার হুমকি দিয়েছে। খবর দ্য গার্ডিয়ানের।

ইন্টারনেটে একটি ভিডিওবার্তার মাধ্যমে এক অজ্ঞাতপরিচয় জঙ্গিকে বলতে শোনা যায়, আছিয়া বিবিকে কানাডায় তার কর্মের জন্য পুরস্কার দেয়া হবে।

আর এতে সে উজ্জীবিত হয়ে পুনরায় ইসলাম ধর্ম নিয়ে অবমাননামূলক কথা বলবে। তাই তাকে হত্যা করতেই হবে।

তবে ভিডিওতে ওই জঙ্গি তার চেহারা দেখায়নি এবং সে কোন সংগঠনের তাও বলেনি।

চার সন্তানের এ জননীর কানাডায় যাওয়ার খবর নিশ্চিত করেছে পাকিস্তানের টিভি চ্যানেল জিও ও এআরওয়াই।

এ ছাড়া তার দুই মেয়ে কানাডায় অবস্থান করছেন এবং সেখানে আশ্রয় চেয়েছেন বলে বিভিন্ন প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে।

প্রতিবেশীদের সঙ্গে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তি করার অভিযোগে আছিয়া গ্রেফতার হয়েছিলেন।

শুরু থেকে নিজেকে নির্দোষ দাবি করে এলেও ২০১০ সালে পাকিস্তানের নিম্ন আদালত আছিয়াকে ধর্ম অবমাননার অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করে মৃত্যুদণ্ড দেন। হাইকোর্টও পরে একই সাজা বহাল রাখেন।

গত অক্টোবরে মৃত্যুদণ্ডের রায় বদলে আসিয়া বিবি বলে পরিচিত আসিয়া নুরিনকে খালাস দিয়েছিলেন পাকিস্তানের সুপ্রিমকোর্ট, যা নিয়ে দেশটির কট্টরপন্থী মুসলিম দলগুলো তুমুল বিক্ষোভ করে।

তারা আসিয়ার মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখার দাবিতে বিক্ষোভ করে এবং তার দেশত্যাগে বাধা দিতে সরকারের ওপর চাপও সৃষ্টি করে।

খালাসের রায় পর্যালোচনা শেষে জানুয়ারিতে সুপ্রিমকোর্ট আগের রায় বহাল রাখলে আসিয়ার দেশছাড়ার পথ সুগম হয়।

মন্তব্য
Loading...