কুলাউড়ায় সপ লাইসেন্স নবায়ন কার্যক্রমের উদ্বোধন, বৈধতা পেলেন ৬০ ব্যবসায়ী  চলমান প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে

123
gb

স্টাফরিপোটারঃ

কুলাউড়া উপজেলা চেয়ারম্যান এ.কে.এম সফি আহমদ সলমান বলেন অসহায় ও সাধারন মানুষের প্রতি বর্তমান সরকারের যুগোপুযোগী বিভিন্ন প্রদক্ষেপ গ্রহন করছে। সেই ধারাবাহিকতায় উপজেলার বিভিন্ন বাজারে সরকারের জায়গায় দীর্ঘদিন ধরে ক্ষুদ্র ব্যবসা চালিয়ে আসছে । সেই ব্যবসায়ীদের বৈধতা প্রদানের জন্য উপজেলা রাজস্ব প্রশাসন মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসকের অনুমোদন ্ধসঢ়;ক্রমে যে উদ্দ্যোগ গ্রহন ও বাস্তবায়নের কাজ শুরু করছে করেছে এ জন্য উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। বিভিন্ন বাজারে ইজারাদারদের দৌরাত্ম থেকে আমাদের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের রক্ষা করতে হবে। কোন অবস্থাতেই এখন থেকে কোন ইজারাদার বৈধ ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে টোল আদায় করতে পারবে না। তিনি আরোও বলেন এক শ্রেণীর দালাল কুচক্রী মহলের কারণে সরকারের উন্নয়ন কাজ বাধাগ্রস্থ হচ্ছে। একটি মহল সাংবাদিকতার নামে হুলুদ সাংবাদিকতার মাধ্যমে সরকারের আশ্রায়ন প্রকল্প নিয়ে অপ্রচার চালিয়ে সাধারণ জনগণের কাছে বিভ্রান্তি ছড়িযে যে কুৎসা রটাচ্ছে তার জন্য আমি তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। তাদের সবাইকে কঠোরহস্তে প্রতিহত করতে হবে। উপজেলা প্রশাসন স্বচ্ছ ও জবাবদিহিতার মধ্য দিয়ে সুন্দরভাবে তার কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছে। কুলাউড়ায় উপজেলা রাজস্ব প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলার ৫টি বাজারে “একসনা বন্দোবস্ত” কার্যক্রমের মাধ্যমে ১৪২৬ বাংলা সনের সপ লাইসেন্স নবায়ন কার্যক্রমের উদ্বোধন উপলক্ষে আলোচনা সভা প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা গুলো বলেন । ৩০ এপ্রিল মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা ভ‚মি অফিস প্রাঙ্গণে আয়োজিত সভায় সহকারী কমিশনার (ভ‚মি) মোঃ সাদি-উর রহিম জাদিদের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউ্ধসঢ়;্ধসঢ়;এনও) মুহাম্মদ আবুল লাইছ, কুলাউড়া প্রেসক্লাব সভাপতি এম শাকিল রশীদ চৌধুরী, কুলাউড়া ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সভাপতি বদরুজ্জামান সজল, সাধারণ সম্পাদক মঈনুল ইসলাম শামীম,সাংবাদিক মাহফুজ শাকিল ও নাজমুল বারী সোহেল। লিজ গ্রহীতাদের মধ্য বক্তব্য রাখেন কুলাউড়ার পেকুর বাজারের ব্যবসায়ী হাজী লোকমান আহমদ, ঘাটের বাজারের ব্যবসায়ী খোকা দাস, রবিরবাজারের ব্যবসায়ী মির্জান আহমদ ও এরশাদ আলী। অনুষ্টানে কুলাউড়া প্রেসক্লাব সাধারন সম্পাদক মোঃ খালেদ পারভেজ বখশসহ রাজস্ব বিভাগের বিভিন্ন কর্মকর্তা কর্মচারী ও বিভিন্ধসঢ়; বাজারের ক্ষুদ্রব্যবসায়ীরা উপস্থিত ছিলেন । উল্লেখ্য, উপজেলা ভ‚মি অফিস স‚ত্রে জানা যায়, কুলাউড়ায় সরকারি ২৪টি হাট-বাজার রয়েছে। এরমধ্য ১২টি হাট-বাজারের পেরি-ফেরি সীমানা নির্ধারণ করা হয়েছে। বাকি বাজারগুলো সীমান নির্ধারণের কাজ প্রক্রিয়াধীন। ১৪২৬ বাংলা সনে একসনা বন্দোবস্তের মাধ্যমে বৈধতা পেলেন ৬০জন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী। তন্মধ্যে রবিরবাজারে ৩৬ জন, পেকুরবাজার ১৪জন, নছিরগঞ্জ বাজার ৮জন, ঘাটের বাজার ১জন ও ফুলেরতল বাজার ১জন ব্যবসায়ী বৈধ লাইসেন্স পেয়েছেন। চলমান প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে । ব্যবসায়ীরা এখন ব্যাংক থেকে ঋণ নিতে পারবে। তাদের কাছ থেকে কোন ইজারাদার আর টোল আদায় করতে পারবে না। কুলাউড়া হাট- বাজার উপজেলা,পৌরসভা, ইউনিয়ন কমিটির কার্যক্রম সক্রিয় রাখতে সভায় উল্লেখ করা হয়।