ইমরান খানের সৌজন্য সাক্ষাতে দলের সঙ্গে মোহাম্মদ আমির

311
gb

পাকিস্তানের বিশ্বকাপ স্কোয়াডের খেলোয়াড়দের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সৌজন্য সাক্ষাতের সময় উপস্থিত ছিলেন দল থেকে বাদ পড়া মোহাম্মদ আমির।

শুক্রবার এ ছবি পোস্ট করে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। ছবিতে দেখা যায়, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী মধ্যবর্তী স্থানে দাঁড়িয়ে আছেন। তার বাম পাশে অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। ইমরান খানের দিক দিয়ে আর সবার ডানে রয়েছেন সদ্য ঘোষিত বিশ্বকাপ দল থেকে বাদ পড়া মোহাম্মদ আমির। এসময় তাকে হাস্যোজ্জ্বল দেখা গেছে।

মোহাম্মদ আমিরের সেই উপস্থিতি তার সমর্থকদের আরও আশাবাদী করে তুলেছে। কারণ, এর আগে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাচক ও ইমরান খানের নেতৃত্বাধীন বিশ্বকাপজয়ী দলের সদস্য ইনজামাম-উল-হক এর আগে সংবাদ মাধ্যমকে বলেছেন, ইংল্যান্ড সিরিজে যদি মোহাম্মদ আমির ভালো খেলে তাহলে দলে তার জায়গা হতে পারে। এজন্য বর্তমান ঘোষিত দলই চূড়ান্ত নয়। আগামী ২৩ মে চূড়ান্ত তালিকা আইসিসির কাছে জমা দেবে পিসিবি।

এর আগে বৃহস্পতিবার দল ঘোষণার পর স্কোয়াড থেকে বাদ পড়া পাকিস্তানের অন্যতম সেরা পেসার মোহাম্মদ আমির এক টুইটবার্তায় বলেন, ‘বিশ্বকাপে সুযোগ পাওয়া নিয়ে আমি আশাহত নই। আমার বিশ্বাস ইংল্যান্ড সিরিজে ভালো খেললে বিশ্বকাপের সুযোগ আসবে।’

বিশ্বকাপে পাকিস্তান ক্রিকেট দলের শুভ কামনা জানিয়ে ২৭ বছর বয়সী এই বাঁ-হাতি পেসার বলেন ‘বিশ্বকাপের দলের জন্য শুভ কামনা, আশা করি শিরোপা আমাদের ঘরে আসবে। চলুন পাকিস্তান ক্রিকেট দলকে সমর্থন করি।’

প্রসঙ্গত, ১৯৯২ সালের বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন পাকিস্তানের অধিনায়ক ইমরান খান এখন দেশটির প্রধানমন্ত্রী। শুক্রবার বিশ্বকাপকে সামনে রেখে পাকিস্তানের ক্রিকেটারদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন ইমরান খান। এসময় তিনি ক্রিকেটারদের সঙ্গে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ঐতিহাসিক ফাইনালের গল্প বলেন। তার কথায় উঠে আসে সেসময়কার নানা স্মৃতি।

আগামী ৩০ মে ইংল্যান্ডে শুরু হচ্ছে বিশ্বকাপ। ক্রিকেটের এই জনপ্রিয় আসরকে সামনে রেখে ইতিমধ্যে দল ঘোষণা করেছে পাকিস্তান। বিশ্বকাপ দলে সুযোগ পাওয়া ক্রিকেটারদের উৎসাহ যোগাতেই তাদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন ইমরান খান।

পাকিস্তানের বিশ্বকাপ দল

সরফরাজ আহমেদ (অধিনায়ক, উইকেটরক্ষক), আবিদ আলি, বাবর আজম, ফাহিম আশরাফ, ফখর জামান, হারিস সোহেল, হাসান আলি, শোয়েব মালিক, ইমাদ ওয়াসিম, ইমাম-উল-হক, জুনায়েদ খান, মোহাম্মদ হাফিজ, মোহাম্মদ হাসনাইন, শাদাব খান ও শাহিন শাহ আফ্রিদি।

gb
মন্তব্য
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More