আন্দোলন অব্যাহত : ববিতে সেশন জটের আশঙ্কা : জাতীয় মানবাধিকার সমিতির উদ্বেগ

32

আন্দোলন অব্যাহত : ববিতে সেশন জটের আশঙ্কা : জাতীয় মানবাধিকার সমিতির উদ্বেগ ২৩ দিনেও বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের অচলাবস্থা নিরসন হয়নি। এতে সেশন জটের আশঙ্কা করছেন সাধারণ শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা এবং অভিভাবক। আজ বুধবারও (১৭ এপ্রিল) শিক্ষার্থীরা তাদের আন্দোলন কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছেন। শিগগিরই তাদের দাবি মানা না হলে আরও কঠোর কর্মসূচির হুমকি দিয়েছেন তারা। পাশাপাশি শিক্ষকরা ৮ দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন। বুধবার সকাল ১০টা থেকে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের কর্মসূচি শুরু হয়। শিক্ষার্থীদের এক দফা দাবি ও শিক্ষকদের আট দফা দাবি নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের নিচে এই কর্মসূচি পালন করা হয়। আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের নেতা লোকমান হোসেন ও শফিকুল ইসলাম জানান, পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে ভিসির পদত্যাগ দাবিতে মঙ্গলবার সকাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। আমাদের পাশাপাশি শিক্ষকরাও তাদের দাবিদাওয়া নিয়ে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে। এদিকে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের ২৩ দিন পার হয়ে গেলেও বিশ্ববিদ্যালয়ের অচলাবস্থা নিরসনে কার্যকর কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে না সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। এ নিয়ে শিক্ষার্থীরা ব্যাপক ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এবং তাদের দাবি অতি শিগগিরই মানা না হলে আরও কঠোর কর্মসূচি ঘোষণার হুমকি দিয়েছেন। এ বিষয়ে গভীর উদ্বেগ ও উৎকন্ঠা প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন- বাংলাদেশ জাতীয় মানবাধিকার সমিতির চেয়ারম্যান মোঃ মঞ্জুর হোসেন ঈসা ও মহাসচিব মোঃ মফিজুর রহমান লিটন। নেতৃবৃন্দ বলেন, দীর্ঘ ২৩ দিন অতিবাহিত হওয়ার পরেও কি কারনে আজও বিশ্ববিদ্যালয়ে সমস্যা সমাধান হয়নি। স্থানীয় ভাবে মন্ত্রী, মেয়র সহ বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষ ও বরিশাল বিভাগের প্রশাসন শিক্ষার্থীদের নিয়ে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করার পরেও সমাধান না হওয়ায় তারা বিষয়টি মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষন করতে পারতেন। কি কারনে তারা নিরব রয়েছেন তাও জাতির কাছে প্রশ্নবোধক? অবিলম্বে বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়ার <

মন্তব্য
Loading...