মৌলভীবাজারে মোটরসাইকেল চোর সিন্ডিকেট সক্রিয়

71

ইউসুফ আহমদ ইমন, মৌলভীবাজার থেকে ||
মোটরসাইকেল চোর সিন্ডিকেট সক্রিয়। গত এক মাসে মৌলভীবাজার জেলার বিভিন্ন উপজেলার বিভিন্ন স্থান থেকে বেশ কয়েকটি মোটরসাইকেল চুরি হয়েছে। সংঘবদ্ধ চোরের দল মোটরসাইকেল-গুলির লগ ভেঙ্গে চুরি করেছে বলে ভুক্তভুগি মালিকরা জানান।
সূত্র জানায়, বিভিন্ন সময় মোটর সাইকেল চোর সিন্ডিকেটের সদস্যদের পুলিশ ধরলেও পরে তারা জামিনে বেরিয়ে আসে। এ কারণে থামে না মোটরসাইকেল চুরি। মোটর সাইকেল চুরি রোধে পুলিশ প্রশাসনের যতটুকু তৎপর হওয়া প্রয়োজন ততটুকু তৎপরতা তাদের কোন সময়েই লক্ষ্য করা যায় না।
ভুক্তভোগীরা জানান, মোটরসাইকেল চুরির সংখ্যা বাড়ছে। জেলার কুলাউড়া, জুড়ী, কমলগঞ্জ উপজেলায় মোটরসাইকেল চুরির মহোৎসব শুরু হয়েছে। ওইসব এলাকায় মোটর সাইকেল চোর সিন্ডিকেটের সদস্যরা ধরাছোঁয়ার বাইরে!
অনুসন্ধানে জানা গেছে, টার্গেট ঠিক করে মোটরবাইক চুরিতে নামে চোররা। তাদের মূল টার্গেট থাকে নতুন মোটরসাইকেলের দিকে। মানুষের কাছে এসব সিন্ডিকেটের সদস্যরা পেশাদার চোর হিসেবে পরিচিত। পুলিশের খাতাতেও তারা অপরাধী। মাত্র ৪ থেকে ৫ মিনিটের ব্যবধানে এসব চোরের দল মোটর সাইকেল নিয়ে চম্পট দেয়। এসব মোটর সাইকেল চুরি করতে তারা এক ধরণের বিশেষ চাবি ও গ্রিল কাটার অত্যাধুনিক চাইনিজ যন্ত্র ব্যবহার করে। এ যন্ত্র দিয়ে নিমেষেই সাইকেলের লক (তালা) খোলা যায়। একেকটি মোটরবাইক ৩০ থেকে ৭০ হাজার টাকা পর্যন্ত বিক্রি হয়।
জানা গেছে, গত ১১ এপ্রিল রাত ৮টার দিকে জুড়ী বিজিবি ক্যাম্প চত্বর থেকে একটি ডিসকোভার সাইকেল চুরি হয়। এরই পেক্ষিতে গাড়ির মালিক উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা আদনান আশফাক ও তার সহকর্মীরা খোজাখুজির এক পর্যায়ে কুলাউড়ার ভাটেরা বাজারে গিয়ে চোর বাচ্চু মিয়া সাইকেলসহ ধরা পড়ে। তার বাড়ি হবিগঞ্জের মাধবপুরের করকী গ্রামে।
এ বিষয়ে জুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ জাহাঙ্গীর আলম সরদার জানান, ইদানিং জুড়ী থেকে অনেক সাইকেল চুরি হচ্ছে। আমরা তাদের সব কয়েকটিকে গ্রেফতার করবো এবং তাদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।
কুলাউড়া পৌর শহরের মিলি প্লাজার সম্মুখ থেকে অভিনব কায়দায় একটি মোটরসাইকেল চুরি হয়েছে। সোমবার (৮ এপ্রিল) দুপুর দেড়টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মোটরসাইকেল চালক ডাঃ হেমন্ত চন্দ্র পাল কুলাউড়া থানায় একটি অভিযোগ করেছেন। তবে এ ঘটনায় এ পর্যন্ত কাউকে আটক কিংবা মোটরসাইকেল (হিরো গ্ল্যামার, সিলেট-হ-১৪৪৭৮০) উদ্ধার করা যায় নি।
কমলগঞ্জের শমশেরনগর বাজার থেকে চলতি মাসে দুটি মোটরসাইকেল চুরি হয়েছে। মটোরসাইকেল মালিক ফারুক মিয়া বলেন, জামান ফার্মেসির সামনে মোটরসাইকেল রেখে পণ্য কিনতে মার্কেটের ভেতরে যাই। পণ্য কিনে মার্কেট থেকে বের হলে মোটরসাইকেলটি রেখে যাওয়া স্থানে পাইনি। এছাড়া মো. আসাদুর রহমানের হিরো ১০০ সিসির মোটরসাইকেল চুরি হয়।
এ বিষয়ে মৌলভীবাজার জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (কুলাউড়া সার্কেল) মো: আবু ইউছুফ জানান,আমরা বিষয়টি অবগত আছি। সংশ্লিষ্ট এলাকার গিয়ে লোকজনের সাথে কথা বলছি এবং মোটরসাকেল গুলি উদ্ধারের চেষ্ঠা চলছে। মোটরসাইকেল চোর সিন্ডিকেটের সদস্যদের ধরতে আমাদের নিয়মিত অভিযান চলছে।

মন্তব্য
Loading...