ক্যাব ৪১নং দক্ষিন পতেঙ্গা ওয়ার্ড কমিটির ওরিয়েন্টেশন সম্পন্ন বিষ খাবেন? তাহলে একটি সিগারেট খান!

97

ধুমপান ও তামাকজাত পণ্য ব্যবহারের কোন উপকারিতা আজ পর্যন্ত আবিস্কার করতে না পারলেও সিগারেট কোম্পানী গুলি নানা প্রকার বিজ্ঞাপন, উপটোকন ও প্রণোদনা দিয়ে তরুনদেরকে বিড়ি সিগারেট এ আসক্ত করছে। আর বিড়ি সিগারেট হলো মাদকাসক্ত হবার প্রথম সোপান। যার সর্বশেষ পরিনতি একটি সম্ভাবনাময় জীবনের পরিসমাপ্তি। বিষয়গুলো জানার পরও মানুষ তামাকে আসক্ত হচ্ছে। হোটেল রেস্তোরায় প্রবেশ পথে ও মুদি দোকানে সারি সারি করে বিড়ি সিগারেট এর বিজ্ঞাপন, প্রদর্শণ ও বিক্রি, খুচরা ভাবে প্রত্যন্ত এলাকায় তামাক বিক্রি থেমে নেই। পরিবার ও সমাজে কয়েকজন প্রথমে তামাক সেবন শুরু করলেও পরবর্তীতে মহামারী আকারে এর বিস্তার ঘটে। আবার পরোক্ষ ধুমপানের কারনে অধুমপায়ীরাও তামাকের বিষক্রিয়া থেকে রেহাই পাচ্ছে না। সেকারনে তামাকজাত পণ্য ব্যবহার একটি মারাত্মক সামাজিক ব্যাধি, যার সর্বশেষ পরিনতি অকাল মৃত্যু। বিজ্ঞানীদের ভাষায় “বিষ খাবেন? তাহলে একটি সিগারেট খান”। সিগিারেট এর নিকোটিন বিষ যা ধীরে ধীরে একজন মানুষকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে। তামাকজাত পণ্যের বিজ্ঞাপন, প্রচারণা ও পৃষ্ঠপোষকতা নিয়ন্ত্রণে ধুমপান বিরোধী আইনের ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান এই ধারা বিধান লংঘন করলে অনুর্ধ ৩ মাস কারাদন্ড বা অনধিক ১ লক্ষ টাকা অর্থদন্ড বা উভয় দন্ডে দন্ডনীয় হবার বিধান থাকলেও আইন প্রয়োগের ঘটনা তেমন একটা দেখা যায় না। ফলে নগরজুড়ে ধুমপানের বিজ্ঞাপন, প্রচারণা এমনকি প্রশাসন, আদালত, হাসপাতাল, ক্লিনিক, হোটেল-রেস্তোরায় প্রবেশ পথে ও মুদি দোকান, নগরীর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিও ধুমপানের বিজ্ঞাপন ও বিক্রি মুক্ত নয়। তাই তামকমুক্ত, ক্লিন ও গ্রীন সিটি ও নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতে পাড়া-মহল্লা, হাট-বাজার ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ সর্বত্র বিজ্ঞাপন ও প্রচারণা বন্ধে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তোলার জন্য সমাজ পরিবর্তনকামি মানুষগুলির প্রতি আহবান জানানো হয়েছে। ৬ এপ্রিল ২০১৯ইং নগরীর পতেঙ্গা ডেইলপাড়া জনাব আলী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৪১নং দক্ষিন পতেঙ্গা ওয়ার্ড কমিটির ওরিয়েন্টেশনে বিভিন্ন বক্তাগন উপরোক্ত দাবি জানান। ক্যাম্পইন ফর টোবাকো ফ্রি কিডস’র সহায়তায় পিপলস জুবিল্যান্ট এনগেজমেন্ট ফর টোবাকো ফ্রি চিটাগাং সিটি প্রকল্প, কনজ্যুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) চট্টগ্রামের আয়োজনে ওরিয়েন্টেশনে সভাপতিত্ব করেন ক্যাব ৪১নং দক্ষিন পতেঙ্গা ওয়ার্ড কমিটির সভাপতি মোঃ আজিজুল হক। প্রধান অতিথি ছিলেন ক্যাব কেন্দ্রিয় কমিটির ভাইস প্রেসিডেন্ট এস এম নাজের হোসাইন। ক্যাব ডিপিও জহুরুল ইসলামের সঞ্চালনায় ওরিয়েন্টেশনে অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ক্যাব চট্টগ্রাম মহানগহর সহ-সভাপতি হাজী আবু তাহের, ক্যাব চট্টগ্রাম দক্ষিন জেলা সভাপতি আলহাজ্ব আবদুল মন্নান। আলোচনায় অংশনেন স্বপপ্নীল ব্রাইট ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ আলী সিদকার, ক্যাব চট্টগ্রাম মহানগরের সদস্য আলমগীর বাদসা, ৪০নং উত্তর পতেঙ্গা ওয়ার্ড কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ ইদ্রিস, ওয়ার্ড কমিটির সহ-সভাপতি মোঃ মাহবুবুল আলম, সহ-সম্পাদক মওলানা সৈয়দ আহাম্মদ আল কাদেরী, বনলতা শীল প্রমুখ। ওরিয়েন্টেশনে আর ও বলা হয় নগরীর মূল অংশের সাথে দুরত্বোর কারনে বন্দর-পতেঙ্গা এলাকায় তামাকজাত পণ্য বিক্রি, অনিরাপদ খাদ্য বিক্রিসহ সামাজিক ব্যাধির বিস্তার অনেক বেশী। নাগরিক ভোগান্তির মাত্রা যেরকম বেশী তেমনি নাগরিক সুযোগ সুিবধা থেকে বঞ্চিত। প্রশাসন ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থার লোকজনের তৎপরতা অনেক কম। সে কারনে এসমস্ত সমস্যাগুলিতে এলাকার জনগন ভোগান্তির শিকার।

মন্তব্য
Loading...