পর্তুগালে অভিবাসীদের অধিকার নিয়ে বাংলাদেশ দূতাবাসে সেমিনার

248
gb

পর্তুগালে বসবাসরত অভিবাসীদের অধিকার বিষয়ে বাংলাদেশি অভিবাসী ও প্রবাসীদের সচেতন করার লক্ষ্যে লিসবনে বাংলাদেশ দূতাবাসে সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

১৪ সেপ্টেম্বর ‘ইমিগ্রান্ট ভিকটিমস অব ক্রাইম এ দেয়ার রাইটস’ শীর্ষক সেমিনারে বাংলাদেশ দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারী, পর্তুগিজ আইনবিদ, বাংলাদেশ কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ, সমাজকর্মী, সংস্কৃতিকর্মী, পর্তুগালে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীসহ বিপুল সংখ্যক অভিবাসী ও প্রবাসী বাংলাদেশিরা অংশগ্রহণ করেন।

পর্তুগালে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. রুহুল আলম সিদ্দিকী তার  স্বাগত বক্তব্যে প্রবাসী বাঙালিদের জন্য সেশনটির গুরুত্ব ও তাৎপর্য তুলে ধরেন। কোনও অভিবাসী বা প্রবাসী কোনও অপরাধ বা বৈষম্যের শিকার হলে তার অধিকার ও আইনি সহযোগিতা বিষয় উপস্থাপন করেন।

অভিবাসন আইন বিশেষজ্ঞ জোয়ানা মেনেজেস বলেন, “অভিবাসীদের অধিকার নিশ্চিতে এবং মানসিক, অর্থনৈতিক কিংবা আইনি সহযোগিতা বা পরামর্শ দেওয়ার লক্ষ্যে এপিএভি দীর্ঘ ২৭ বছর ধরে কাজ করে যাচ্ছে। বর্তমানে পর্তুগালের বিভিন্ন প্রান্তে অবস্থিত ১৭ টি স্থানীয় কার্যালয় এবং বিভিন্ন দেশের অসংখ্য স্বেচ্ছাসেবীদের সমন্বয়ে ‌এপিএভি দুই লাখ ৯৫  হাজার অভিবাসী ও প্রবাসীদের সব ধরনের সহযোগিতা ও পরামর্শ বিনামূল্যে, গোপনীয়তা রক্ষা করে এবং ধর্ম, বর্ণ বা জাতি নির্বিশেষে প্রদান করা হচেছ বলে জানান তিনি।

অভিবাসী বা প্রবাসী কোনও বাংলাদেশি কোন ধরনের অপরাধ বা বৈষম্যের শিকার হলে কিংবা কোনও সমস্যায় পড়লে দূতাবাসের মাধ্যমে কিংবা সরাসরি এপিএভি’র সঙ্গে যোগাযোগ করে সহযোগিতা বা পরামর্শ নেওয়া যাবে। এ ধরনের সহযোগিতা পাওয়ার জন্য বাংলাদেশ দূতাবাসের টেলিফোন নম্বর +৩৫১-২১২-৬৯৭-০৩৭ (সোমবার থেকে শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত) অথবা সরাসরি এপিএভি’র টোল ফ্রি হটলাইন নম্বর ১১৬-০০৬ (যে কোনও দিন সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত) নম্বরে যোগাযোগ করা যেতে পারে বলেও জানানো হয়।