নবীগঞ্জের দিনারপুরে মাদ্রাসা ছাত্রী ধর্ষনের ঘটনায় এলাকায় তোলপাড়:ঘটনা ধামাচাপা দিতে প্রভাবশালীদের দৌড়ঝাঁপ

আতংকে ধর্ষিতার পরিবার

697
gb

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি  ||
নবীগঞ্জের দিনারপুর কান্দিগাঁও গ্রামের মুজিবুর রহমান কর্তৃক প ম শ্রেণীতে অধ্যয়নরত মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষনের ঘটনা নিয়ে তোলপাড় চলছে। ধর্ষনের ঘটনা ধামাচাপা দিতে বিভিন্ন মহলে দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছে অভিযুক্ত প্রভাবশালী। প্রভাবশালীদের দাফটে আতংকে আছেন ধর্ষণের শিকার ছাত্রীর পরিবার। এ ঘটনাকে ঘিরে এলাকায় আলোচনা সমালোচনার ঝড় বইছে। ঘটনাটি তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী এলাকাবাসীর। তবে পুলিশ বলছে অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে। অপর দিকে, নিজেকে নির্দোষ দাবী করছেন অভিযুক্ত মুজিবুর রহমান। অভিযুক্ত মুজিবুর রহমান অতিথের জীবনযাপন নিয়েও নানা আলোচনা সমালোচনা দেখা দিয়েছে এলাকার লোকদের মাঝে।
উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার গজনাইপুর ইউপির কান্দিগাঁও এলাকার আব্দুল ওয়াহিদ মিয়ার মাদ্রাসা পড়ুয়া ধর্ষিতা মেয়েকে নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ধর্ষিতাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। বর্তমানে সে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
ধর্ষিতার পিতা আব্দুল ওয়াহিদ মিয়া জানান, তার কন্যা স্থানীয় দিনারপুর উত্তর লামরোহ এবতেদায়ী মাদ্রাসার প ম শ্রেণীতে অধ্যয়নরত জনৈকা (১৬) ওই সময় স্থানীয় একটি মাঠে গরু চড়াতে গেলে একই ইউনিয়নের কান্দিগাঁও গ্রামের মুজিবুর রহমান তাকে একা পেয়ে ঝাপটে ধরে তাকে ধর্ষন করে। এসময় তার চিৎকার শুনে ধর্ষিতাকে বাচাঁতে তার ফুফু মোছাঃ তকমিনা আক্তার এগিয়ে আসলে তিনিও ধর্ষকের হাতে আহত হয়েছেন বলে অভিযোগ করেন। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। তবে নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ এস এম আতাউর রহমানের সাথে বুধবার রাত ১০ ঘটিকার সময় যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, এখন পর্যন্ত কোন অভিযোগ পাননি। অভিযোগ পেলে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
এদিকে, অভিযুক্ত মুজিবুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, তাদের সাথে মামলা মোকদ্দমা রয়েছে। এরই জের নিয়ে তারা র্তা বাড়িতে হামলার ঘটনার ঘটিয়েছে। তবে ধর্ষনের কোন ঘটনা ঘঠেনি। অপর দিকে স্থানীয় লোকজন অভিযুক্ত মুজিবুর রহমান চরিত্রহীন বলে দাবী করেছেন।