চাঁপাইনবাবগঞ্জে পুলিশ নিয়োগ পরীক্ষায় গ্রেপ্তার ৬ ভূয়া পরীক্ষার্থীর কারদন্ড

356
gb

 

জাকির হোসেন পিংকু, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি:
চাঁপাইনবাবগঞ্জে পুলিশ কনস্টেবল (টিআরসি-ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল) পদেনিয়োগের লিখিত পরীক্ষায় মূল প্রার্থীর হয়ে টাকার বিনিময়ে বদলী পরীক্ষা দিতেএসে ছয় ছাত্র গ্রেপ্তার হয়েছেন। ভ্রাম্যমান আদালত তাঁদের ১ মাস করে কারাদন্ড
দিয়েছেন। এদিকে চাকুরী পাইয়ে দেয়ার নামে প্রতারনা করে প্রার্থীদের নিকটথেকে টাকা নিয়ে যে চক্র এই অপরাধ ঘটিয়েছে তাঁদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা
গ্রহণের প্রক্রিয়া শুরু করেছে পুলিশ। গত মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে তিনটা থেকেপাঁচটা পর্যন্ত পরীক্ষা চলাকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পুলিশ লাইন্সে ছয় ভূয়াপ্রার্থী গ্রেপ্তার হন। এরা হলেন, ময়মনসিংহ সদর উপজেলার আকুয়া গ্রামেরগোলাম মোস্তফার ছেলে ও ঢাকা কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান ৩য় বর্ষের ছাত্র সমসেরআলী,রংপুর পীরগঞ্জের রহমান ইসলামের ছেলে ও সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটি সিভিলইঞ্জিনিয়ারিং ৩য় বর্ষের ছাত্র সোহানুর রহমান, ময়মনসিংহ গৌরিপুর উপজেলারপাছার গ্রামের আবদুল কুদ্দুসের ছেলে ও কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়
পরিসংখ্যান ৩য় বর্ষের ছাত্র ইমরুল হাসান, নেত্রকোনা কলমাকান্দা উপজেলার সিদলীগ্রামের রহমত আলীর ছেলে ও ঢাকা কলেজ ইংরেজীর ছাত্র পলাশ আহমেদ, বরিশাল সদরেরচরবাড়িয়া গ্রামের সামসুল আলমের ছেলে ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ইসলামী স্টাডিজ
মাষ্টার্সের ছাত্র তাসরিফ আলম এবং ময়মনসিংহ ফুলপুর উপজেলার মুখলেসুররহমানের ছেলে ও আনন্দমোহন কলেজের ইংরেজী প্রথম বর্ষের ছাত্র রাসেল আহমেদ।

?

চাঁপাইনবাবগঞ্জ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহবুব আলম জানান,জেলার শিবগঞ্জউপজেলার ছয়জন প্রার্থীর হয়ে এরা পুলিশ সুপারের স্বাক্ষর জাল ও ছবি পরিবর্তনকরে পরীক্ষায় অংশ নেয়। এতে কর্তৃপক্ষের সন্দেহ হয়। জিজ্ঞাসাবাদে তাঁরা অন্যের
হয়ে পরীক্ষায় অংশ নেয়ার কথা স্বীকার করে। সন্ধ্যায় ওই ছয়জনকে সদর থানা পুলিশে
সোপর্দ করা হয়। সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আতিকুল ইসলাম জানান, রাতেইতাঁদের ভ্রাম্যমান আদালতে হাজির করা হলে আদালতের বিচারক ওচাঁপাইনবাবগঞ্জের এনডিসি নয়ন কুমার রাজবংশী প্রত্যেককে ১ মাস করেকারাদন্ড প্রদান করেন। এদিকে যে ছয় প্রার্থীর হয়ে তাঁরা পরীক্ষায় অংশ নেয়তাঁদের সনাক্ত করা হয়েছে। তাঁদের পরীক্ষা বাতিল হয়ে গেছে। এরা হলেন, শিবগঞ্জেরসাহাপাড়া তারাপুর ঠুঠাপাড়ার মুনজুর হোসেনের ছেলে হযরত আলী, বাবুপুরআটরশিয়া গ্রামের খাইরুল ইসলামের ছেলে মেহেদী হাসান,মির্জাপুর উত্তর
মকিমপুর গ্রামের আশরাফুল আলমের ছেলে নাইম আলী, কানসাট মধ্যডারী এলাকাররুহুল আমিনের ছেলে নাসিরউদ্দিন, শাহাপাড়ার মকবুল হোসেনের ছেলে মাসুদরানা ও দূর্লভপুর শেরপুরের সাইদুর রহমানের ছেলে আব্দুল করিম। এদিকে পুলিশেচাকুরী নিয়ে দেয়ার কথা বলে প্রতারণা করে প্রার্থীদের নিকট টাকা নিয়েযে চক্র মূলত: এই অপরাধ ঘটিয়েছে তাঁদের সনাক্ত করে তাঁদের বিরুদ্ধেআইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। ###