দাম্পত্যে মতবিরোধ মেটানোর উপায় জানা গেল গবেষণায়

969
gb

মো: নাসির নিউ জার্সি আমেরিকা থেকে ||
দম্পতিদের মাঝে মতবিরোধ হতে পারে নানা কারণে। নানা ছোটখাট বিষয়েও মতবিরোধ স্বাভাবিক। তবে মূল বিষয় হলো, এ মতবিরোধ কিভাবে মিটিয়ে ফেলা যায়। সম্প্রতি গবেষকরা এ বিষয়ে একটি গবেষণা করেছেন। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে বিজনেস ইনসাইডার।

আপনার সঙ্গে জীবনসঙ্গীর মতবিরোধ হতেই পারে। আর এ মতবিরোধ দূর করতে গিয়ে অনেকেই তা আরো বাড়িয়ে ফেলেন। গবেষকরা দীর্ঘদিন ধরে এ ধরনের মতবিরোধ দূর করার উপায় নিয়ে গবেষণা করেছেন। এ ধরনের গবেষণায় নিয়োজিত এক গবেষকের নাম জন গটম্যান। তিনি গটম্যান ইন্সটিটিউটের প্রতিষ্ঠাতা ও একজন সম্পর্ক উন্নয়ন বিষয়ক গবেষক। তিনি ইউনিভার্সিটি অব ওয়াশিংটনের সাইকোলজির প্রফেসরও বটে। গটম্যান জানান, যে দম্পতিরা বিচ্ছিন্ন হয়ে যেতে চান তাদের তুলনায় যারা একত্রে থাকতে চান তাদের নানা বিষয়ে মতবিরোধ থাকে।

এ বিষয়ে গবেষকদের আরেকজন হলেন ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া বার্কলির সাইকোলজিস্ট রবার্ট লেভেনসন। গটম্যান ও লেভেনসন সম্পর্কের এ মতবিরোধ বিষয়ে দীর্ঘ ১৪ বছর ধরে গবেষণা করেন। এ জন্য তারা ৭৯ জন দম্পতিকে অন্তর্ভুক্ত করেন এবং তাদের জীবনের নানা ঘটনা লিপিবদ্ধ করেন। এ দম্পতিরা সবাই যুক্তরাষ্ট্রের মিডওয়েস্টের বাসিন্দা।

গবেষণার এ ১৪ বছরে দেখা যায়, দম্পতিদের মাঝে ২১ জনের বিচ্ছেদ হয়ে যায় এক দশকেরও আগে। কিন্তু যারা সম্পর্ক টিকিয়ে রেখেছে তাদের মাঝে সম্পর্ক যে একেবারে মসৃণ তা নয়। নানা পর্যায়েই তাদের সম্পর্কে ঝড়-ঝাপটা আসে। তবে এসব বিষয় তারা মানিয়ে নেন। তাদের এ মানিয়ে নেওয়া থেকে দুটি বিষয় তুলে ধরেছেন গবেষকরা। এগুলো হলো :
১. তারা ভারসাম্য রক্ষা করেন
দাম্পত্য একটি দোলুল্যমান নৌকার মতো। এখানে যে দম্পতিরা দীর্ঘদিন টিকে থাকতে পেরেছেন তারা মূলত এ নৌকার ভারসাম্য বজায় রাখেন। যেকোনো বিষয়ে মতবিরোধ হলে কিংবা কোনো বিষয়ে সন্দেহ হলে তারা সঙ্গে সঙ্গে সে বিষয়ে আলোচনা করেন। এতে বিষয়গুলো নিষ্পত্তি করা সহজ হয়। গবেষকরা জানান, দাম্পত্যে কোনো বিষয়ে সন্দেহ দেখা দিলে কিংবা অসন্তোষ শুরু হলে তা কালকে আলোচনার জন্য ফেলে রাখা উচিত নয়। এতে স্বাভাবিক সম্পর্কের ভারসাম্য নষ্ট হয়। যত দ্রুত সম্ভব সবধরনের মতবিরোধ নিয়ে ঠাণ্ডা মাথায় আলোচনা করে তা নিষ্পত্তি করা উচিত।
২. অন্যের কথা শোনা
মতবিরোধপূর্ণ বিষয়ে অন্যের বক্তব্য শোনা এবং তা অনুধাবন করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। যে দম্পতিরা ডিভোর্সের শিকার হয়েছেন, তাদের মাঝে এ বিষয়টি কাজ করেনি। অন্যদিকে যারা দীর্ঘদিন ধরে দাম্পত্য সম্পর্ক চালিয়ে যাচ্ছেন, তাদের মাঝে এ বিষয়টি সঠিকভাবে চলেছে। গবেষণায় দেখা গেছে, দম্পতিদের একজন অন্যজনের কাছে যেকোনো বিষয়ে খোলা মনে আলোচনা করলে এবং অন্যের কথা শুনলে মতবিরোধ সহজেই দূর করা যায়। এতে দাম্পত্য সম্পর্ক টিকিয়ে রাখাও সহজ হয়।