দুবাইয়ে বাংলাদেশীদের বসন্ত বরণ

317
gb
লুৎফুর রহমান ||
‘বসন্তে বাতাসে, ভালবাসার সৌরভে’ দুবাইয়ে বাংলাদেশীরা বসন্ত বরণ করেছেন। পুরুষ-নারী সকলের গায়ের হলদে বরণ কাপড় জানান দিচ্ছিলো ফুল ফুটক আর নাইবা ফুটুক এসেছে বসন্ত।  বাংলাদেশের বসন্ত যেন এসেছিলো দুবাইয়ের প্রকৃতিতে। সবুজ প্রকৃতির বুকে বাসন্তী রঙে ভিনদেশী এই পরিবেশও যেন সেজেছিলো বাসন্তী রূপে।
শুক্রবার দুবাইয়ের নাখিল পার্কে এ বসন্ত বরণের আয়োজন করেন বাংলাদেশী প্রবাসীরা। এসময় প্রাণবন্ত উপস্থিতি এ আয়োজনের শিল্পগুণ বাড়িয়েছিলো।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বাংলাদেশী প্রবাসীদের শুভেচ্ছা জানান বাংলাদেশ কনসুলেট জেনারেল দুবাই ও উত্তর আমিরাতের কনসাল জেনারেল এস বদিরুজ্জমান।
এ সময় তিনি বলেন, প্রবাসের যাপিত জীবনে আমাদের আপন সংস্কৃতি লালন করার আনন্দ আকাশসম। এটাই আমাদের বড় সুখ।প্রবাসে ভিনদেশের কাছে নিজের দেশকে তুলে ধরতে সাংস্কৃতিক কার্যক্রম এরকম সৃজনশীল করার কথাও বলেন তিনি।
অনুষ্ঠানে বসন্তের গানের উপর দুটো নাচ করেন নৃত্যশিল্পী তিশা সেন। তার দুটো নাচই দর্শকদের মন জয় করে।
পড়ন্ত বিকেলে সবুজ সমারোহ আর হলদে বরণ আবেশে চলে কবিতা পাঠ। এ সময় কবিতা পাঠ করেন, গুলশান আরা, সাইদা দিবা, জোহেনা আক্তার রুনি।
গান পরিবেশন করেন সাবরিনা মেহেরিন টুম্পা, লুৎফুর রহমান রাসেল, আরিফা নুসরাত। তাদের গানের মূর্ছনায় পরবাসী মন ডুব দেয় স্মৃতির পুকুরে।
অনিন্দ্য সুন্দর এ অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সংস্কৃতি সংগঠক মোহাম্মদ নওশের আলী। অনুষ্ঠানটির সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন নাহিদা পারভীন মুন্নি, সাইদা দিবা, জুলফিকার হায়দার খান, শাফিয়া আক্তার তুহিন।
অনুষ্ঠানে বসন্তের শৈল্পিক সাজে সাজার জন্য তিন জনকে বসন্ত রাণী ও একজনকে বসন্তরাজ ঘোষণা করা হয়।
পরে বাংলাদেশী প্রতিষ্ঠান আইদিন বুটিকের পক্ষ থেকে পুরস্কৃত করা হয় বিজয়ীদেরকে।
সকলের হাতে পুরস্কার তুলে দেন কনসাল জেনারেল এস বদিরুজ্জমামান।