Bangla Newspaper

হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে নোয়াখালীর সেই গৃহবধূকে

44

জ্বীন বা ভূতে ধরেছে এমনটি মনে করে পরিবারের লোকজন গত ৪ বছর যাবৎ ২০বছর বয়সি গৃহবধূ রিমাকে পায়ে শিকল পরিয়ে রেখেছিল। নোয়খালীর চাটখিল উপজেলার সেই গৃহবধূ রিমাকে মঙ্গলবার সন্ধায় রাজধানীর ডাঃ সিরাজুল ইসলাম মেডিক্যাল কলেজ এন্ড হসপিটালে ভর্তি করা হয়েছে হসপিটালের চেয়ারম্যান, সুমনা গ্রুপ অফ কোম্পানীজ ও নোয়খালী প্রতিদিন টিভির চেয়ারম্যান ডাঃ রুবাইয়াত ইসলাম মন্টির নির্দেশে। গৃহবধূ রিমা পূর্ন সুস্থ হওয়া পর্যন্ত তার চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করবেন ডাঃ মন্টি। উল্লেখ্য ৪ বছর আগে একই উপজেলার বানসা গ্রামের মিরন মিয়ার মেয়ে রিমা আক্তারকে পারিবারিক ভাবে বিয়ে করেন উপজেলার গোমাতলী গ্রামের সিদ্দিক উল্লাহ। বিয়ের কিছুদিন পর রিমার মানসিক সমস্যা দেখা দেয়। এতে সে পাগলামি শুরু করলে বাড়ির লোকজন ভূত বা জ্বীনে ধরেছে বলে অভিমত প্রকাশ করে এর পর থেকে শুরু হয় রিমা আক্তারের শিকল পরা জীবন। স্বামী সিদ্দিক উল্লাহ গ্রামে একটি ছোট চায়ের দোকানের মাধ্যমে নিজের সংসার পরিচালনা করার কারনে অর্থাভাবে স্ত্রীর চিকিৎসা করাতে পারেন নি। বাধ্য হয়ে স্ত্রীর পাগলামী বন্ধ রাখতে হাত পায়ে শিকল পরিয়ে রাখতেন।স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমে সংবাদটি প্রকাশিত হলে চাটখিল প্রেমিক ,মানবতার অতন্ত্র প্রহরি ,বাংলাদেশের চিকিৎসা ক্ষেত্রের উজ্জ্বল নক্ষত্র মরহুম ডাঃ সিরাজুল ইসলামের সুযোগ্য পুত্র ডাঃ রুবাইয়াত ইসলাম মন্টি গৃহবধূ রিমার চিকিৎসা সেবায় এগিয়ে এলেন। তিনি তাৎক্ষণিক ভাবে তার কর্মকর্তাদের রিমার পূর্ন চিকিৎসার ব্যবস্থা গ্রহনের নির্দেশ প্রদান করেন। এই নির্দেশের প্রেক্ষিতে হাসপাতাল কতৃপক্ষ তাদের নিজস্ব তত্বাবধানে গতকাল চাটখিল থেকে ঢাকায় নিয়ে আসে। রিমা এখন হাসপাতালের ১০০৮ নাম্বার কেবিনে চিকিৎসাধীন আছেন। চাটখিলের গৃহবধূ রিমা নয় এ রকম অসংখ্য অসহায় গরীব ও দুস্থ রোগীকে বিনামূল্যে অতীতে চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছিলেন ডাঃ রুবাইয়াত ইসলাম মন্টি । গৃহবধূ রিমার চিকিৎসায় ডাঃ মন্টির তাৎক্ষণিক পদক্ষেপ সর্বত্রই প্রশংসিত হচ্ছে।

Comments
Loading...